নখের যত্নে ঘরোয়া কিছু টিপস

নখের যত্নে ঘরোয়া কিছু টিপস

আমাদের হাত ও পায়ের সৌন্দর্যের এক অন্যতম অংশ নখ। সুন্দর নখ হাতকে যেমন করে আকর্ষনীয় তেমন পা’কে করে মনকাড়া। পরিচ্ছন্ন নখ শুধু হাত-পায়ের সৌন্দর্যই বৃদ্ধি করে না। একইসঙ্গে এটি ব্যক্তিত্বও তুলে ধরে। ঝাঁ তকতকে, ঝকঝকে, আকর্ষনীয়, সুন্দর নখ কার না পছন্দ। নারীদের জন্য হাতের নখের সৌন্দর্য রক্ষা করা একটু কঠিন। নখ সুন্দর রাখতে পানির ব্যবহার যত কম করা যায় ততই ভাল। কিন্তু নারীদের প্রায় সব কাজেই পানির ছোঁয়া আছে। একটু ইচ্ছা এবং সচেতন থাকলেই সম্ভব নখের যত্ন নেওয়া। সময় কিংবা অর্থের কারণে যারা পার্লারে গিয়ে নখের পরিচর্চা করতে পারেন না তারা ঘরে বসেই নিতে পারেন যত্ন।  তাই আসুন জেনে নেই নখের যত্নের কিছু করণীয়।

  • বাড়িতে যেসব উপকরণ আছে সেসব উপকরণ দিয়ে সেরে নিতে পারেন মিনিকিওর পেডিকিওর। প্রথমে আপনি হালকা কুসুম গরম পানিতে সামান্য লবণ, সামান্য শ্যাম্পু, ও লেবুর রস দিয়ে ১৫-২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন হাত ও পায়ের নখ। এরপর যেকোনো ব্রাশ দিয়ে নখ গুলো ঘুষে নিন। ঠাণ্ডা  পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এরপর নেইল কাটার দিয়ে আপনার পছন্দ মত সাইজ করে নখ কেটে নিন। তবে নখ সমান করে কাটুন কারন উচু নিচু করে কাটা নখ সহজেই ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে। এরপর যেকোনো ময়শ্চারাইজিং লোশন দিয়ে ম্যাসাস করুন ৫ মিনিট । এতে আপনার রক্ত সঞ্চালন বাড়বে।
  • এক সপ্তাহের বেশি নখে নেইল পলিস রাখবেন না।নেইল পলিস উঠাতে কোন ধারালো কিছু ব্যবহার করবেন না। সেক্ষেত্রে রিমুভার ব্যবহার করেন। অন্তত ৩-৪ দিন ব্যবধানে নখে নেইল পলিস ব্যবহার করুন।
  • নেইল পলিস ব্যবহারে সচেতন হউন।অতিরিক্ত নেইল পলিস ও রিমুভার আপনার নখ গুলো কে ড্রাই করে এবং নখের প্রাকৃতিক কালার নষ্ট করে।

  • রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে নখে অলিভ অয়েল ও ভেসলিন লাগিয়ে ঘুমান। এতে আপনার নখ শক্ত হবে এবং নখের হলুদ ভাব দূর হবে।
  • দাঁত দিয়ে অনেকের নখ কাটার অভ্যাস থাকে। এটি অবশ্যই ত্যাগ করুন।
  • অনেক সময় সবজি কাটতে হাতে কালো দাগ হয়। সেক্ষেত্রে কাটা লেবু ঘুসুন , এমনি পরিষ্কার হবে।
  • নখ কে সুস্থ রাখতে ভেতরের পুষ্টি খুব দরকার । সেজন্য ভিটামিন বি, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, আয়োডিন , আয়রন যুক্ত খাবার খেতে হবে।
  • প্রচুর পরিমানে পানি খেতে হবে।
  • শরীরের প্রতিটি অঙ্গ সুস্থ রাখার জন্য পযাপ্ত ঘুম অপরিহার্য।

  • আমরা আজকাল বিভিন্ন কায়দা করে নকল নখ লাগাই, এ প্রক্রিয়া ক্রমাগত করতে থাকলে আমাদের নখে ফাঙ্গাস আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। যারা নেইল পালিশ বেশি ব্যবহার করেন তারা লক্ষ্য করবেন যে নখ হলুদ হয়ে গেছে। এর থেকে ফাঙ্গাস আক্রান্ত হবার সম্ভাবনাও বেড়ে যায় ।
  • নখ কাটার সবচাইতে  ভালো সময় গোসলের পরে.এ সময় নখ নরম থাকে আর সহজে নখ কাটাও যায়। এছাড়া আপনি নখ কাটার আগে ৪/৫ মিনিট হালকা গরম পানিতে খাবার লবণ মিশিয়ে নিন আর তাতে হাত,পা,ভিজিয়ে রাখুন। এর পরে সাবান দিয়ে হাত পা ধুয়ে ,মুছে নখ কাটবেন।

  • আমাদের শরীরের মত আমাদের নখের জন্যেও দরকার ময়েস্চরায়জার। আমরা নেইল পলিশ রিমুভার দিয়ে তুলি এর ফলে নখের আদ্রতা হারিয়ে যায়। এ কারনে যখনি আপনি লোশন লাগাবেন নখ গুলোতেও মালিশ করবেন।
  • নখের যেকোনো সমস্যা যেমন, নখে দাগ, অতিরিক্ত হলুদ ভাব, খুব তাড়াতাড়ি নখ ভেঙ্গে যাওয়া, নখের কোণ  ঘা বা পচে যাওয়া প্রভৃতি দেখে দিলে অবশ্যই ডাক্তারের চিকিৎসা নিতে হবে।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *